প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / কোয়েটার ম্যাচ সেরা হলেন মাহমুদউল্লাহ
home-ad-620-x-90

কোয়েটার ম্যাচ সেরা হলেন মাহমুদউল্লাহ

অনলাইন ডেস্ক  : কোয়েটা গ্লাডিয়েটর্সের হয়ে বল হাতে গুরুত্বপূর্ণ তিন উইকেট নেওয়ার পাশাপাশি ব্যাট হাতেও করেছেন ৮ রান। তার এই অলরাউন্ড নৈপুণ্যে করাচি কিংসকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে কোয়েটা। আর এই চমৎকার পারফরম্যান্সের পুরস্কার স্বরূপ জিতে নিয়েছেন ম্যাচ সেরার পুরস্কারটিও।

বৃহস্পতিবার দুবাইয়ের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয় এ দু’দল। কোয়েটা টসে জিতে করাটিকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায়। প্রথমে ব্যাট করে করাচি ৬ উইকেটে ১৫৪ রান করে। জবাবে ৬ বল বাকি থাকতেই ১৫৮ রান মংগ্রহ করে জয় নিশ্চিত করে কোয়েটা।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালোই করেছিল করাচির দুই ওপেনার বাবর আজম ও কুমার সাঙ্গাকারা। ওপেনিং জুটিতে তারা ৬৩ রান সংগ্রহ করে। এই দুই ওপেনারকেই সাজঘরে ফেরান বাংলাদেশের মাহমুদউল্লাহ। ম্যাচের অষ্টম ওভারের পঞ্চম বলে সাঙ্গাকারাকে প্রথমে প্যাভিলিয়নের পথ ধরান তিনি। আউট হওয়ার আগে শ্রীলঙ্কান এই ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে এসেছে ১৮ বলে ২৮ রান। এরপর ম্যাচের ১২তম ওভারে আবারও আঘাত হানেন মাহমুদউল্লাহ। এবার তার শিকারে পরিণত হন আজম। ৩৭ বলে ৩৬ রান ফিরেন আজম।

আর শেষ শিকার হিসেবে শোয়েব মালিককে ৯ রানে প্যাভিলিয়নের পথ ধরান মাহমুদউল্লাহ। দলের হয়ে প্রথম তিনটি উইকেটই নিয়েছেন তিনি। তার দাপটে করাচির ইনিংস শেষ হয় ১৫৪ রানে।

৪ ওভারে ২১ রান দিয়ে ৩ উইকেট তুলে নিয়েছেন তিনি। এছাড়া আনোয়ার আলী ২টি এবং মির হামজা ১টি উইকেট পান।

কুয়েটার জয়ের পথটা শুরুতেই সহজ করে দেন দুই ওপেনার আসাদ শফিক ও আহমেদ শেহজাদ। ড্যাশিং ওপেনার শেহজাদ ৪০ বলে ৫৪ রান করেছেন। মেরেছেন ৪টি চার ও ৩টি ছক্কা। আগ্রাসণ কম ছিল না শফিকের ব্যাটিংয়েও। ৩৮ বলে ৫১ তার। ১০৫ রানের উদ্বোধনী জুটির পর অবশ্য পর পর ৩টি ধাক্কা খায়। কেভিন পিটারসনও শূন্য রানে আউট। ৬ রানে ৩ উইকেট নেই। রিলি রুশো ১৫ রান করেন। তবে অধিনায়ক সরফরাজ (১৯) ও মাহমুদউল্লাহ ৬ বল বাকি থাকতেই গুরুত্বপূর্ণ জয় এনে দেন।

web-ad

আপনার মতামত দিন

আপনার ই-মেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না, এই চিহিৃত ঘরটি অবশ্যই পূরণ করতে হবে *

*