প্রচ্ছদ / লীড নিউজ / মানবেতর জীবন-যাপন করছে দুই হাজার হকার্স পরিবার
home-ad-620-x-90

মানবেতর জীবন-যাপন করছে দুই হাজার হকার্স পরিবার

স্টাফ রিপোর্টার  :  হকাররা স্বল্প পুঁজির এবং স্বল্প আয়ের ভাসমান ব্যবসায়ী। তারা ‘দিন আনে দিন খায়’ শ্রেণির মানুষ। এ খেটে খাওয়া স্বল্প আয়ের মানুষগুলো ফুটপাতে ব্যবসা করতে গিয়ে সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রতিনিধিদের চাহিদা পূরণ করে ব্যবসা করে।

গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর থেকে হকার্সরা তাদের দোকান খুলতে না পেরে খুবই মানবেতর জীবন-যাপন করছে। এ অবস্থায় পরিবার-পরিজন নিয়ে বেঁচে থাকার সংগ্রামে কেউ কেউ দিশেহারা হয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পুলিশের লাঠির আঘাত সয্য করেও ফুটপাতে বসার চেষ্টা করছেন। কিন্তু পুলিশ তাদেরকে কিছুতেই ফুটপাতে বসতে দিচ্ছে না।

এদিকে হকার্সদের পূর্ণবাসনের দাবী জানিয়ে বিভিন্ন সভা-সমাবেশ, মানববন্ধন করেছে স্থানীয় হকার নেতারা। তাদের দাবী, পূর্ণবাসন না হওয়ায় মানবেতর জীবনযাপন করছে প্রায় দুই হাজার হকার্স। অনেকেই অর্থাভাবে সন্তানদের স্কুলে লেখাপড়া করাতে পারছেন না। বন্ধ হয়ে গেছে সন্তানদের স্কুলে যাওয়া।

জানাগেছে, গতবছর সাভার বাসস্ট্যান্ডে হকারদের মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে উচ্ছেদ করা হয়েছে। সাভার বাসস্ট্যান্ড, গেন্ডা বাসস্ট্যান্ড, হেমায়েতপুর বাসস্ট্যান্ড, আমিনবাজার বাসস্ট্যান্ডসহ বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ডের হকারদের দোকানপাট ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে। হকাররা ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের উভয় পাশ থেকে বিতাড়িত করা হয়। কিন্তু মহান বিজয় দিবস ১৬ই ডিসেম্বরের পর থেকে হকাররা তাদের দোকান সাজিয়ে মহাসড়কের পাশে বসার চেষ্টা করলেই পুলিশ এসে তাদের ধাওয়া করছে।

তবে প্রশাসনের পক্ষে থেকে বলা হচ্ছে, ঢাকা-আরিচা মহাসড়েকের দুপাশে কোন হকার বসতে দেওয়া হবে না।

এদিকে হকার্স নেতারা দাবি করছেন, তাদের পুনর্বাসন না করে এভাবে উচ্ছেদ করতে পারে না স্থানীয় প্রশাসন। আমরা আলোচনা করছি, যদি দেয়ালে পিঠ ঠেকে যায় তাহলে আন্দোলনের মধ্যদিয়ে দাবি পূরণ করা হবে।

একাধিক সাধারণ হকারদের সঙ্গে আলাপ করলে তারা জানান, এতে দুই একজন হকার সামন্যতম মালামাল নিয়ে বসলে তাদের মালামালগুলো পুলিশ ফেলে অথবা গাড়িতে উঠিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।

তবে সাভার পৌরসভা হকার্স বহুমুখী সমবায় সমিতির সাধারন সম্পাদক আতাউর রহমান আতা জানান, হকার পুনর্বাসন করার জন্য তারা সাভারের সংসদ সদস্য, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সাভার পৌর সভা ও ঢাকা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন।

সাভার পৌর হকার্স বহুমুখী সমবায় সমিতির সভাপতি দেলোয়ার হোসেন খোকন বলেন, আমাদের পৌরসভার হকার ভাইদের পুনর্বাসন না করে তারা ফুটপাত থেকে একেবারে হকার উচ্ছেদ করে দেয়ার চেষ্টা করছে। তাহলে এই অভাগা হকারা এখন কোথায় গিয়ে দাড়াবে। তিনি বলেন, আমাদের সমিতির পক্ষ থেকে স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ অনেকের সাথে আলাপ আলোচনা চলছে হকার পুনর্বাসন করার জন্য।

বাংলাদেশ আওয়ামী হকার্সলীগের সাভার উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মো: লিটন খান বলেন, প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রতি বছর বিজয় দিবসে উপলক্ষে বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর জন্য জাতীয় স্মৃতিসৌধে যাতায়াতে দুই পাশের ফুটপাত হকারমুক্ত রাখে। ভিআইপিদের নিরাপত্তার শেষে হকারা তাদের নিজ নিজ স্থলে বসে ব্যবসা করেন। কিন্তু এবার আর হকারদের বসতে দিচ্ছে না প্রশাসন।

তিনি দাবি করেন, আমার হকার ভাইদের পুনর্বাসন করে ফুটপাত থেকে উঠিয়ে দেয়ায় পরিবার নিয়ে অর্ধহারে-অনাহারের দিন কাটছে। অনেকেই তাদের ছেলেমেয়েদের স্কুলে ভর্তি করতে পারছে না। ফলে সন্তানদের লেখাপড়াও অশ্চিত হয়ে পরেছে। তারা দ্রুত সংশ্লিষ্ঠ প্রশাসনের নিকট হকারর্সদের পুর্নবাসনের দাবী জানিয়েছেন।

web-ad

আপনার মতামত দিন

আপনার ই-মেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না, এই চিহিৃত ঘরটি অবশ্যই পূরণ করতে হবে *

*