প্রচ্ছদ / লীড নিউজ / জেলা পরিষদ নির্বাচন: ফেল করায় ভোটারদের কাছ থেকে টাকা ফেরত নিলেন প্রার্থী
home-ad-620-x-90

জেলা পরিষদ নির্বাচন: ফেল করায় ভোটারদের কাছ থেকে টাকা ফেরত নিলেন প্রার্থী

অনলাইন ডেস্ক  :  কুড়িগ্রাম জেলা পরিষদ নির্বাচনে সদস্য পদে হেরে ভোটারদের কাছ থেকে টাকা ফেরত নিলেন এক প্রার্থী।

বুধবারের নির্বাচনে মাত্র এক ভোট পাওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে ওই সদস্য প্রার্থী নির্বাচনের আগে ভোটারদেরকে দেয়া টাকা ফেরত নেন। জানা গেছে, নাগেশ্বরী উপজেলায় ভিতরবন্দ, হাসনাবাদ, নেওয়াশী, রামখানা ও সন্তোষপুর ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত জেলা পরিষদের ৪নং ওয়ার্ড সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ৪ প্রার্থী।

এর মধ্যে অটোরিকশা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন ভিতরবন্দ ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক ডা. আমিনুল ইসলাম। তিনি বিজয় নিশ্চিত করতে নির্বাচনের কয়েকদিন আগে তার চাচাত ভাই বাতেনের বাড়ীতে ওই ইউনিয়নের ১২ জন ইউপি সদস্যকে দাওয়াত খাইয়ে দুই কিস্তিতে প্রতিজনকে ২০ হাজার টাকা দেন। কিন্তু ভোট পেয়েছেন মাত্র ১টি।

এতে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে ভোটের পরদিন ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে তাদের কাছে টাকা ফেরত চান। চাপের মুখে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম খন্দকারের উপস্থিতিতে ইউপি সদস্য নুর ইসলাম, ইউনুছ আলী, মাইনউদ্দিন, মুকুল মিয়া, রুহুল আমিন, হাবিবুল ইসলাম, ফেরদৌস আলম, জিয়াউর রহমান টাকা ফেরত দেন।

অপর ৪ জন সন্ধ্যার মধ্যে টাকা ফেরত দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে নিস্তার পান।

ইউপি সদস্যরা জানান, আমরা টাকা চাইনি, জোর করে টাকা দিয়েছেন। তিনি অযোগ্য হওয়ায় আমরা তাকে ভোট দেই নাই। তিনি টাকা ফেরত চাওয়ায় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে তা ফেরত দিয়েছি।

এ ব্যাপারে পরাজিত প্রার্থী ডা. আমিনুল ইসলাম বলেন, ভোট দিতে চেয়ে টাকা নিয়েছিল। ভোট দেয় নাই, তাই টাকা ফেরত নিচ্ছি।

উল্লেখ্য, এ নির্বাচনে উপজেলায় ৩ টি ওয়ার্ডের অধিকাংশ ভোটারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রার্থীর কাছ থেকে ভোট দেয়ার কথা বলে টাকা নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

 

সূত্র: মানবজমিন।

web-ad

আপনার মতামত দিন

আপনার ই-মেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না, এই চিহিৃত ঘরটি অবশ্যই পূরণ করতে হবে *

*