প্রচ্ছদ / জেলার খবর / যশোরে চীনা ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার, ২ কর্মচারী আটক
home-ad-620-x-90

যশোরে চীনা ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার, ২ কর্মচারী আটক

অনলাইন ডেস্ক  :  যশোর সদর উপজেলার উপশহর এলাকার একটি বাড়ি থেকে এক চীনা নাগরিকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। চ্যাং হিং চং নামের ওই ব্যক্তি একজন ইজিবাইক ব্যবসায়ী। তিনি চীন থেকে ইজিবাইক বাংলাদেশে আমদানি করে বিক্রি করতেন।

পুলিশ জানিয়েছে, বুধবার রাতে উপশহরের জেল রোডের ভাড়া বাসায় তিনি হত্যাকাণ্ডের শিকার হন। বৃহস্পতিবার সকালে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। বেলা সাড়ে ১১টায় তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শস্যা জেনারের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

যশোর কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইলিয়াস হোসেন জানান, উপশহর মহিলা কলেজের পাশে ফরিদা ভিলায় ভাড়া থাকতেন চ্যাং হিং চং। তার সঙ্গে কর্মচারী নেত্রকোনা জেলার বাসিন্দা নাজমুল ও তার ভাইপো মুক্তাদির থাকতেন। বৃহস্পতিবার সকালে নাজমুল ও মুক্তাদির পুলিশকে খবর দেন, চ্যাং হিং চং-কে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এ সময় তাদের কথাবার্তায় সন্দেহ হলে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করে। পরে তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী, হামিদা ভিলা থেকে চীনা নাগরিকের লাশ উদ্ধার করা হয়।

ওসি জানান, বুধবার রাতের কোনো এক সময় তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, অর্থ আত্মসাৎ নিয়ে বিরোধের জের ধরে তাকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে। এ ঘটনায় নাজমুল ও মুক্তাদিরকে আটক করা হয়েছে বলেও জানান ওসি।

এদিকে, আজ সকালে যশোরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) হ‌ুমায়ূন কবির ও পুলিশ সুপার (এসপি) আনিসুর রহমান  ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। সেখানে এসপি আনিসুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে তিনতলা বাড়িটির নীচতলায় চীনা নাগরিক চ্যাং হিং সংকে টাকার জন্যে তার সহকারী নাজমুল ও নাজমুলের ভাইপো মুক্তাদির রড বা লোহার পাইপ জাতীয় কোনও বস্তু দিয়ে মাথায় আঘাত ও পিটিয়ে হত্যা করে। এরপর তার মোবাইলফোন সেট নিজেদের কাছে অফ করে রেখে দেয়।

তিনি জানান, নিহতের স্ত্রী ঢাকায় থাকেন। তিনি রাতে কয়েকদফা ফোন করেও তাকে না পেয়ে নাজমুলকে ফোন দেন। তখন নাজমুল জানায়, স্যারকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। সেইসময় তার স্ত্রী বিষয়টি থানায় অবহিত করতে বলেন। গভীররাতে নাজমুল কোতয়ালী থানায় এ বিষয়ে জানাতে গেলে পুলিশ তাকেই সন্দেহ করে আটক করে। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী মুক্তাদিরকে আটক করে। তারা পুলিশকে খুনের বিষয়টি জানায়। আটক দুজনের বাড়ি নেত্রকোণা সদরের চকপাড়া এলাকায়। রাত থেকেই ওইবাড়িটি পুলিশের নজরদারিতে ছিল।

ডিসি হ‌ুমায়ূন কবির সাংবাদিকদের এ হত্যাকাণ্ডকে একটি বিচ্ছিন্ন ও দুঃখজনক ঘটনা উল্লেখ করে বলেন, এরই মধ্যে নিহতের স্ত্রী প্রমালাং যশোরে এসে পৌঁছেছেন। পরিবার যেভাবে চায়, সেভাবে লাশ হস্তান্তরের ব্যবস্থা নেব।

খবর পেয়ে পুলিশের খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি ইকরামুল হাবিব বেলা ১১টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। বাড়িটি র‌্যাব, পুলিশ, ডিবি অবস্থান নিয়ে ঘিরে রেখেছে।

web-ad

আপনার মতামত দিন

আপনার ই-মেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না, এই চিহিৃত ঘরটি অবশ্যই পূরণ করতে হবে *

*