প্রচ্ছদ / গণমাধ্যম / সাভারে ‘কথিত’ সাংবাদিক সবুজের বিরুদ্ধে প্রেসক্লাবের নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদা নেয়ার অভিযোগ
home-ad-620-x-90
সাভারের ‘কথিত’ চাঁদাবাজ সাংবাদিক এস এম সবুজ

সাভারে ‘কথিত’ সাংবাদিক সবুজের বিরুদ্ধে প্রেসক্লাবের নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদা নেয়ার অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার  :  সাভার প্রেসক্লাবের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও দৈনিক করতোয়া পত্রিকার সাভার প্রতিনিধি এস এম সবুজের বিরুদ্ধে এক ব্যবসায়ীকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি দেখিয়ে প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের ম্যানেজ করার কথা বলে ৪০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

এঘটনায় সাভার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মিঠুন সরকার নিন্দা জানিয়ে সভাপতির আদেশক্রমে প্রেসক্লাবে কার্যকরী পরিষদের একটি জরুরি সভা ডেকেছেন।

সোমবার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে পৌর এলাকায় আইছানোয়াদ্দা ব্যবসায়ী অলী আহম্মেদকে ভয়ভীতি দেখিয়ে তার ভাই আজিজের কাছ থেকে ৪০ হাজার টাকা নিয়েছে বলে অভিযোগ করেন।

তবে ঘটনার তিন দিন অতিবাহিত হতে চললেও বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে চাঁদাবাজ কথিত সাংবাদিক সবুজের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় জনমনে দেখা দিয়েছে নানান প্রশ্ন। ক্লাবের সদস্যদের মাঝেও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জানান গেছে, সাভার পৌর এলাকায় আইছানোয়াদ্দা এলাকার বাসিন্দার ব্যবসায়ী অলী আহম্মেদের বাসার গৃহকর্মী বন্যা তার মায়ের সাথে অভিমান করে ঘরে দরজা আটকিয়ে আত্মহত্যা করে। এমন ঘটনার সূত্র ধরে সাভার প্রেসক্লাবের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও দৈনিক করতোয়ার সাভার প্রতিনিধি এস.এম সবুজ ওই ব্যবসায়ীর বাড়িতে গিয়ে সংবাদ প্রকাশের ভয় দেখিয়ে ব্যবসায়ীকে জিম্মি করে নগদ ৬০ হাজার টাকা দাবি করে। টাকা দিয়ে প্রেসক্লাবের সকল সাংবাদিকদের ম্যানেজ করার কথা জানালে দেনদরবার শেষে সাংবাদিক সবুজের জিম্মি থেকে উদ্ধার হওয়ার জন্য তার ব্যবসায় প্রতিষ্টানের কর্মচারী কনকের মাধ্যমে ৪০ হাজার টাকা মিমাংস করেন।

মঙ্গলবার বিকালে সাভার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মিঠুন সরকারসহ অন্য সাংবাদিকরা ওই ঘটনার সংবাদ প্রকাশের জন্য আলী অঅহম্মেদের ভাই অলি আহম্মেদের সাথে যোগাযোগ করলে সে জানায়, ‘সাংবাদিকদের কথা বলে সাংবাদিক সবুজ ৪০হাজার টাকা নিয়ে গেছে। তাহলে আপনারা আবার কেন বিরক্ত করছেন’।

তাৎক্ষনিক ভাবে সাংবাদিক সবুজকে তার ব্যবহিত মোবাইল নম্বরে ফোন করে বন্ধ পাওয়া যায়। পরে সাংবাদিক সবুজ সন্ধ্যার পর তার ব্যহিত মোবাইল নম্বরটি চালু করেন। এসময় সাভার প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক মিঠুন সরকার ফোন করে বিষয়টি জানতে চাইলে সবুজ টাকা নেয়ার কথা অস্বীকার করেন।

পরে সাধারণ সম্পাদক মিঠুন সরকার, দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক মো: ইমদাদুল হক প্রেসক্লাবের সিনিয়র সদস্য ও ইনকিলাবের স্টাফ রিপোর্টার সেলিম আহমেদকে নিয়ে ব্যবসায়ী অলি আহম্মেদের আরেক ভাই আজিজের কাছে সাংবাদিক সবুজকে প্রমান করার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। তখন মুঠফোনে আজিজ প্রেসক্লাবের সিনিয়র সদস্য বাংলাভিশনের সাংবাদিক নজমুল হুদা শাহীনকেও বিষয়টি অবহিত করেন।

তখন আজিজ সবুজসহ অন্যান্য লোকজনের সামনে সবুজকে ৪০ হাজার টাকা দেয়ার কথা প্রমান করিয়ে দেন। এবং যাদের সামনে টাকা দিয়েছেন তাদেরকেও উপস্থিত করেন।

আজিজ বলেন, আমরা সম্মানিত লেঅক ব্যবসায়ী, সবুজ যে ভাবে ভয়ভীতি দেখায়ছে, তাতে সম্মানের কথা চিন্তা করে টাকাটা দিয়েদিয়েছি।

সাভার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মিঠুন সরকার জানান, প্রেসক্লাবের কথা বলে ব্যবসায়ীর কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়ার বিষয়টি ক্লঅবের সভাপতি তুহিন খানসহ অন্যান্যদের অবহিত করা হয়েছে। দ্রুত টাকা ফেরতসহ সবুজের বিরুদ্ধে ক্লাবের ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে সাভার প্রেসক্লাবের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও দৈনিক করতোয়া পত্রিকার সাভার প্রতিনিধি এস এম সবুজ টাকা নেয়ার কথা অস্বীকার করেছেন।

web-ad

আপনার মতামত দিন

আপনার ই-মেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না, এই চিহিৃত ঘরটি অবশ্যই পূরণ করতে হবে *

*