প্রচ্ছদ / লীড নিউজ / চাকরিতে প্রবেশের বয়সবৃদ্ধিরদাবিতে দেশব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা
home-ad-620-x-90

চাকরিতে প্রবেশের বয়সবৃদ্ধিরদাবিতে দেশব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা

অনলাইন ডেস্ক: সরকারি চাকুরিতে প্রবেশের বয়স ৩০ থেকে বাড়িয়ে ৩৫ করার দাবিতে দেশব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্রপরিষদ।
সংগঠনটির সভাপতি ইমতিয়াজ হোসেন এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন। কর্মসূচির ধারাবাহিকতায় আগামী ৩ ডিসেম্বর খুলনার শিববাড়ি মোড়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করবে তারা।  একই দিনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করবে সংগঠনটি।
এরপর চট্টগ্রাম, বরিশাল, ময়মনসিংহ, রংপুর, কুমিল্লা বিভাগসহ প্রত্যেক জেলায় কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত।
দাবি সম্পর্কে ইমতিয়াজ হোসেন  বলেন, ‘প্রথম শ্রেণির চাকুরীর শুরুর বয়স ২১ বছর চাওয়া হয়। কোন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র কী ২১ বছরে অনার্স শেষ করতে পারে? কমপক্ষে ২৩ অথবা ২৪ বছর সময় লাগে।  তাহলে ২১ বছর এটি অচল আইন। এটি অনেক আগেই গ্রহণযোগ্যতা হারিয়েছে, বাংলার লক্ষ্য কোটি ছাত্র সমাজ এ অচল আইনের পরিবর্তন চায়। ২১ বছর যেহেতু গ্রহণযোগ্যতা হারিয়ে তাহলে শুরুর বয়সটা হবে ২৩/২৪ বছর। আর ২১ থেকে ৩০ বছর আমাদের ৯ বছর সময় দেওয়া হয়। সহজ হিসাব ২৪+৯=৩২ বছর অনার্সের পরিধি ১ বছর বাড়ানো হয়েছে এই হল ৩৩ বছর। ভর্তি সংক্রান্ত অন্যান্য বিষয়াদিসহ আমরা ২ বছর হারিয়ে ফেলি, এই হল ৩৫ বছর।  তাহলে চাকুরি প্রবেশের বয়স ৩৫ বছর এটি যৌক্তিক দাবি এবং আমাদের ন্যায্য অধিকার। কারো কাছে করুণা করছি না, ন্যায অধিকার আদায়ের জন্য মাঠে নেমেছি।
ইমতিয়াজ হোসেন আরও বলেন, এটি আন্দোলের বিষয় নয় এটি উপলবদ্ধির বিষয়, এটি অনুধাবনের বিষয়। আর এ অনুধাবনের বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদ দীর্ঘ ৪ বছর যাবৎ আন্দোলন করে আসছে। তবুও সরকারের ঊর্ধ্বমহলের বোধদয় হচ্ছে না যে দাবিটি বাস্তবায়ন দরকার।
উন্নতবিশ্ব তাদের জনগণকে জনশক্তিতে রূপান্তরের ক্ষেত্রে বয়সের সীমারেখা দেয়নি। যেমন ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ৪০ অন্যান্য প্রদেশে ৩৮ থেকে ৪০, শ্রীলঙ্কায় ৪৫, ইন্দোনেশিয়ায় ৪৫,  ইতালিতে ৩৫, ফ্রান্সে ৪০, যুক্তরাষ্ট্রে ৫৯, কানাডাতে ৫৯, সুইডেনে ৪৭,  কাতারে ৩৫, নরওয়েতে ৩৫, এঙ্গোলাতে ৪৫, তাইওয়ানে চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ বছর। থাইল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, যুক্তরাজ্যসহ অনেক দেশে চাকরিতে প্রবেশের বয়সের কোন সীমারেখা নেই। অথচ আমাদের দেশে বয়সের সীমা রেখা দিয়ে বন্দি করে রাখা হয়েছে বাংলার লক্ষ্য কোটি ছাত্র সমাজকে। বহির্বিশ্বের চিত্র যদি এই হয় তা হলে ডিজিটাল বাংলাদেশে আমরা কেন পিছিয়ে থাকবো বলে জানান ইমতিয়াজ হোসেন।

web-ad

আপনার মতামত দিন

আপনার ই-মেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না, এই চিহিৃত ঘরটি অবশ্যই পূরণ করতে হবে *

*