প্রচ্ছদ / লীড নিউজ / আমিনবাজারে সংঘর্ষের ঘটনায় নিখোঁজের লাশ উদ্ধার, ৩৯ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা
home-ad-620-x-90

আমিনবাজারে সংঘর্ষের ঘটনায় নিখোঁজের লাশ উদ্ধার, ৩৯ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

স্টাফ রিপোর্টার  :  জমি দখলকে কেন্দ্র করে সাভারে সীমান্তবর্তী এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদীতে একটি আবাসন প্রকল্পের নির্মাণকাজে থাকা লোকজনের উপর হামলা ও গুলিবর্ষনের ঘটনায় ৩৯ জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় মোহাম্মদপুরের যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতা ও আওয়ামীলীগ নেতা ওয়ার্ড কাউন্সিলরকেও আসামী করা হয়েছে।

এছাড়া নিখোঁজ সিলিকন সিটির কর্মী জুয়েলের (২৮) লাশ মঙ্গলবার সকালে নদী থেকে ভাষমান অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন, আমিনবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই বাসেদ মিয়া।

এরআগে সোমবার রাতে সিলিকন সিটি আবাসন প্রকল্পের সুপারভাইজার আব্দুল হামিদ বাদী হয়ে সাভার মডেল থানায় ১৪ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা আরো ২৫ জনকে আসামী করে মামলাটি (নং-৩৮) দায়ের করেন।

মামলার আসামীরা হচ্ছে- আদাবর থানা যুবলীগের আহব্বায়ক আরিফুর রহমান তুহিন, ঢাকা উত্তর সিটিকরপোরেশনের ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও মোহাম্মদপুর থানা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিজান, ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজ, সাইফুল ইসলাম, ফারুক হোসেন, ইয়াসিন আহম্মেদ, রিয়াজ আহম্মেদ, মিঠু মিয়া, মধু মিয়া, রুঞ্জু আহম্মেদ,  রিয়াজ মাহামুদ-২, মিরাজ উদ্দিন, কামরুল হাসান, রনি আহম্মেদ ও হিটু মিয়াসহ অজ্ঞাত ২৫জন।

ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার শাহ মিজান শফিউর রহমান বলেন, মামলাটিতে হত্যা অভিযোগও যুক্ত করা হবে। এজন্য আদালতে আবেদন করা হবে। তবে মামলার অভিযুক্ত আসামীরা রাজধানীর আদাবর ও মোহাম্মদপুর এলাকার বাসিন্দা হওয়ায় তাদেরকে গ্রেফতারে ঢাকা মহানগর পুলিশের সহায়তায় গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মামলার বরাত দিয়ে সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এসএম কামরুজ্জামান জানান, বড় বড়দেশী মৌজায় অবস্থিত সিলিকন সিটির জমি দীর্ঘদিন ধরে দখল করার চেষ্টা করে ওয়েস্টান লেক সিটির সন্ত্রাসী বাহিনী।
দখলে ব্যর্থ হয়ে ৭০ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকার যুবলীগ নেতা তুহিন, ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিজান, আদাবর এলাকার ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজ আহম্মেদ,  ও সাইফুল ইসলাম, ফারুক হোসেন, ইয়াসিনসহ বশে কয়েকজন লোক ওয়েষ্টটেন লেক সিটি নামের একটি আবাসন প্রকল্প চালু করে।

এরই সুত্র ধরে রবিবার দুপুরে সিলিকন সিটির লোকজনের উপর হামলা চালায়। এসময় সন্ত্রাসীরা গুলি ছুড়ে ও হাত বোমা বিস্ফোরন ঘটায়। হামলায় সিলিকন সিটির ৫ জন গুলিবিদ্ধসহ আহত হয় অন্তত ২০জন। তবে হামলাকারীদের পক্ষে আমিনবাজার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন কাজ করার কথা জানিয়েছে অনেকেই।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহফুজুর রহমান মিয়া বলেন, হামলার দিন নিখোঁজ সিলিকন সিটির কর্মী জুয়েলের লাশ সকালে উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লঅশটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত; রোববার সাভারে সীমান্তবর্তী এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদীতে আবাসন প্রকল্প সিলিকন সিটির নির্মাণকাজে থাকা লোকজনের উপর আদাবরের যুবলীগ নেতার নেতৃত্বে হামলা চালালে ৫জন গুলিবিদ্ধসহ ২০জন আহত হয়।

সিলিকন সিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সারোয়ার হোসেন বলেন, সন্ত্রাসীরা তার রিয়েল স্টেটের জমি অন্যায়ভাবে দখল করতে আসে। এসময় বাধা দিলে তার ৬কর্মীকে গুলি ও আরো ১৪জনকে কুপিয়ে জখম করে। এছাড়াও জুয়েল নামের তার এক ইট সরবরাহকারীকে গুলি করে আহত করার পর ইট দিয়ে মাথা থেতলে হত্যা করে। পরে তার লাশ তুরাগ নদীতে ফেলে দেয় বলেও তিনি জানান।

এছাড়াও তিনি ক্ষোভের সাথে অভিযোগ করে বলেন, এ ঘটনার পর তারা থানায় মামলা দায়ের করে। তবে মামলায় পুলিশকে একাধিকবার নিখোজের বিষয়টি উল্লেখ করলেও পুলিশ তা নথিভুক্ত করেনি। এছাড়াও ঘটনার দুদিন পার হয়ে গেলেও এ ঘটনায় পুলিশ এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করেনি বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

web-ad

আপনার মতামত দিন

আপনার ই-মেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না, এই চিহিৃত ঘরটি অবশ্যই পূরণ করতে হবে *

*